রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ১০:২৭ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
কুয়াকাটায় অবরোধ চলাকালীন সমুদ্রে মাছ ধরার অপরাধে ১৮ জন জেলেকে  আটক করছে নৌ পুলিশ নৌকা বিরোধী  ষড়যন্ত্রকারীরা কখন আ’লীগের হতে পারে না-তালুকদার মোঃ ইউনুস বরিশালে নির্বাচন উপলক্ষে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সাথে আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত সভা স্বাস্থ্য ও সামাজিক নিরাপত্তা খাতে বিনিয়োগ বৃদ্ধির দাবীতে বরিশাল মানববন্ধন ও সমাবেশ বেইজিং প্ল্যাটফরম ফর একশন +২৫ পর্যালোচনা এন্ড ফলোআপ কর্মশালা বরিশালে বিষপানে তরুনের আত্নহত্যার চেষ্টা সর্বহারা অধ্যুষিত গৌরনদীর সরিকল ইউনিয়নে কেন্দ্র দখলের পায়তারা আমতলীতে নির্বাচনী সহিংসতা । দু’চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের হামলায় আহত- ১৩ সংসারের ভার আমতলীর শিশু শ্রমিক নুর জামালের কাঁধে ভিজিএফ’র চাল পেল আমতলীর সাড়ে ছয় হাজার জেলে
বিদ্যমান ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বর্নিত অপরাধ সমূহ

বিদ্যমান ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বর্নিত অপরাধ সমূহ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮ এ সুনিদির্ষ্ট কতগুলো অপরাধ এবং উক্ত অপরাধের শাস্তি সম্পর্কে বিধান বর্ণনা করা আছে।ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ষষ্ঠ অধ্যায়ের ১৯-৩৬ ধারায় উক্ত বিধানসমূহ উল্লেখ করা আছে।অন্যান্য আইনের চেয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের শাস্তি সম্পর্কিত বিধান আলাদা ধরনের।কারন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বর্ণিত অপরাধ সমূহ একবার সংঘটনের শাস্তি একাধিকবার সংঘটনের শাস্তি থেকে আলাদা অর্থাৎ একই অপরাধ একবার সংঘটনের শাস্তির চেয়ে একাধিকবার সংঘটনের শাস্তি আলাদা বা বেশী।ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বর্ণিত অপরাধ সমূহ হল : ১. গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পরিকাঠামোতে বে- আইনী প্রবেশের অপরাধ। (ধারা-১৭) ২. কম্পিউটার, ডিজিটাল ডিভাইস, কম্পিউটার সিস্টেম ইত্যাদিতে বে-আইনি প্রবেশের অপরাধ।(ধারা-১৮) ৩. কম্পিউটার, কম্পিউটার সিস্টেম ইত্যাদির ক্ষতি সাধনের অপরাধ। (ধারা-১৯) ৪. কম্পিউটার সোর্স কোড পরিবর্তন সংক্রান্ত অপরাধ। (ধারা-২০) ৫. মুক্তিযুদ্ব,মুক্তিযুদ্বের চেতনা,জাতির পিতা,জাতীয় সংগীত বা জাতীয় পতাকার বিরুদ্ধে কোনো প্রকার প্রপাগাণ্ডা বা প্রচারণার অপরাধ ( ধারা- ২১) ৬. ডিজিটাল বা ইলেকট্রনিক জালিয়াতির অপরাধ(ধারা-২২) ৭. ডিজিটাল বা ইলেকট্রনিক প্রতারণার অপরাধ (ধারা -২৩) ৮. পরিচয় প্রতারণা বা ছদ্মবেশ ধারণের অপরাধ ( ধারা – ২৪) ৯. আক্রমণাত্নক,মিথ্যা বা ভীতি প্রদর্শক, তথ্য – উপাও প্রেরণ,প্রকাশ ইত্যাদির অপরাধ( ধারা – ২৫) ১০.অনুমতি ব্যতিত পরিচিত তথ্য সংগ্রহ, ব্যবহার,ইত্যাদির অপরাধ (ধারা-২৬) ১১. সাইবার সন্ত্রাসী কার্য সংঘটনের অপরাধ( ধারা- ২৭) ১২. ওয়েবসাইট বা কোন ইলেকট্রনিক বিন্যাসে ধর্মীয় মূল্যবোধ বা অনুভূতিতে আঘাত করে এমন কোন তথ্য প্রকাশ,সম্প্রচার, ইত্যাদির ( ধারা – ২৮)১৩. মানহানিকর তথ্য প্রকাশ, প্রচার,ইত্যাদির অপরাধ। (ধারা-২৯) ১৪. আইনানুগ কর্তৃত্ব বহির্ভূত ই- ট্রানজেকশন এর অপরাধ( ধারা- ৩০) ১৫. আইন -শৃঙ্খলার অবনতি ঘটানো,ইত্যাদির অপরাধ(ধারা- ৩১) ১৬.সরকারি গোপনীয়তা ভঙ্গের অপরাধ (ধারা-৩২) ১৭.বে- আইনিভাবে তথ্য -উপাও ধারণ,স্থানান্তর, ইত্যাদির অপরাধ (ধারা- ৩৩) ১৮. হ্যাকিং সংক্রান্ত অপরাধ (ধারা – ৩৪) ১৯.অপরাধ সংঘটনে সহায়তার অপরাধ(ধারা -৩৫) ২০.কোম্পানি কর্তৃক সংঘটিত অপরাধ (ধারা- ৩৬)।বাংলাদেশের বাহিরে থেকেও যদি কেউ এই আইনে বর্নিত কোন অপরাধ করে তাহলে তার এই আইনের অধীনে এই মর্মে বিচার হইবে যেন অপরাধটি বাংলাদেশেই সংঘটিত করেছে।

লেখকঃএডভোকেট মোঃ কাওসার হোসাইন,
সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবি ও আইনগ্রন্থপ্রনেতা




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved by barishalobserver.Com
Design & Developed BY Next Tech