বাংলাদেশে ‘ফাইটার’ মুক্তি পায়নি

বিনোদন ডেস্ক :
কথা ছিল ভারত ও বিশ্বের অন্যান্য দেশের পাশাপাশি বাংলাদেশেও বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) মুক্তি পাবে হৃতিক রোশন ও দীপিকা পাড়ুকোন অভিনীত হিন্দি সিনেমা ‘ফাইটার’। নিয়ম অনুযায়ী তথ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনও মিলেছিল।

তবে এক সপ্তাহ পরই ফেব্রুয়ারি তথা ভাষার মাস। তাই এই মাসে কোনও হিন্দি সিনেমা প্রদর্শনে সম্মতি দিচ্ছে না চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট সংগঠনগুলোর জোট সম্মিলিত চলচ্চিত্র পরিষদ।  সে কারণে ‘ফাইটার’-এর মুক্তি বাতিল করেছে সিনেমাটির আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান অ্যাকশন কাট এন্টারটেইনমেন্ট।

হিন্দি সিনেমা দেশে মুক্তি দিতে গেলে সম্মিলিত চলচ্চিত্র পরিষদের অনুমতি লাগে। সেটার জন্যই আবেদন করেন মামুন। কিন্তু সংগঠনের এই জোট শর্ত দেয়, ফেব্রুয়ারির আগে কিংবা পরে সিনেমাটি মুক্তি দেওয়া যাবে।

এ বিষয়ে সম্মিলিত চলচ্চিত্র পরিষদের আহ্বায়ক খোরশেদ আলম খসরু বলেছেন, “গতকাল (২৪ জানুয়ারি) এফডিসিতে পরিষদের চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট ১৮ সংগঠনের নেতাদের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় আমরা জানুয়ারি মাসে হিন্দি ছবির মুক্তির ব্যাপারে সম্মতি দিতে একমত হয়েছি। তবে ভাষার মাসে হিন্দি ছবির প্রদর্শনী যাতে না হয়, সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই শর্ত মেনে ‘ফাইটার’ ছবির আমদানিকারক অনাপত্তিপত্র চাইলে দেওয়া হবে।”

বরিশাল অবজারভার / হৃদয়

বাংলাদেশে মুক্তি পাচ্ছে না হৃতিক-দীপিকার ‘ফাইটার’

বিনোদন ডেস্ক :
ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশেও মুক্তি পাওয়ার কথা ছিলো হৃতিক রোশন-দীপিকা পাড়ুকোনের ছবি ‘ফাইটার’। এজন্য সব প্রস্তুতিও ছিলো। কিন্তু হঠাৎ জানা গেল সিনেমাটি বাংলাদেশে মুক্তি পাচ্ছে না। মুক্তির না পাওয়ার বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন সিনেমাটি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান অ্যাকশন কাট এন্টারটেইনমেন্টের কর্ণধার ও পরিচালক অনন্য মামুন।

সম্মিলিত চলচ্চিত্র পরিষদের আহ্বায়ক খোরশেদ আলম খসরু গণমাধ্যমেকে জানান, আজ বৃহস্পতিবার বিকালে সেন্সর বোর্ডে ‘ফাইটার’ ছবি দেখার সিডিউল রয়েছে। আজ সন্ধ্যায় সেন্সর পেলে ছবিটি শুধু ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত সিনেমা হলে চলতে পারে। কিন্তু ভাষার মাসে এই সিনেমা চলবে না।

সম্মিলিত চলচ্চিত্র পরিষদের একটি চিঠিতে বলা হয়, আবেদনের প্রেক্ষিতে ভারতীয় হিন্দি ছবি ‘ফাইটার’ আমদানি করে আগামী ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত (ভাষার মাসে) প্রদর্শন না করে তার পূর্বে কিংবা পরে মুক্তিদানের অঙ্গিকার করে একটি অঙ্গিকারনামা আমাদের সম্মিলিত চলচ্চিত্র পরিষদ অনুকূলে জমা দেয়ার বিশেষ অনুরোধ করছি।

ভাষার মাসে হিন্দি ছবি মুক্তি না দিতে এতে অনন্য মামুনের সহযোগিতাও চাওয়া হয় ওই চিঠিতে। এই চিঠির প্রেক্ষিতে গণমাধ্যমকে অনন্য মামুন জানান, বাংলাদেশে ‘ফাইটার’ আমরা রিলিজ করবো না। কারণ ইন্ডিয়ান প্রযোজক ৬ দিনের জন্য সিনেমা রিলিজ করবে না।

বরিশাল অবজারভার / হৃদয়

ভারতে যাচ্ছে হিরো আলমের সিনেমা

বিনোদন ডেস্ক :
দেশের গণ্ডি পেরিয়ে এবার ভারতেও মুক্তি পেতে যাচ্ছে হিরো আলমের সিনেমা। ইভান মল্লিক পরিচালিত হিরো আলমের নতুন সিনেমা মুক্তি পাবে আগামী ফেব্রুয়ারিতে। জানা গেছে, বাংলাদেশ-কলকাতা দুই বাংলাতে মুক্তি পেতে যাচ্ছে সিনেমাটি।

সংবাদমাধ্যমকে হিরো আলম জানিয়েছেন, ‘বাদশা দ্য কিং’ সিনেমার শুটিং অনেক আগেই শেষ করেছেন তিনি। বর্তমানে সিনেমাটি মুক্তির কাজ চলছে। কলকাতায় ‘বাদশা দ্য কিং’ মুক্তির বিষয়ে আলোচনা চলছে।

সিনেমা মুক্তির খবর জানিয়ে হিরো আলম জানান, বাংলাদেশের পাশাপাশি কলকাতায় সিনেমা মুক্তির বিষয়ে কথাবার্তা চলছে। আগামী মাসে ‘বাদশা দ্য কিং’ সিনেমাটি মুক্তির কাজ শুরু করতে চান। ইতোমধ্যে ভারতের ভিসার জন্য আবেদন করেছেন। ভিসা পেলেই সিনেমাটি মুক্তির জন্য ভারতে যাবেন হিরো আলম।

সামনে ভালো কিছু কাজ আসছে জানিয়ে হিরো আলম বলেন, এতে দর্শকরা আমাকে নতুনরূপে দেখতে পাবেন। এ ছাড়াও একটু অপেক্ষা করলেই দর্শকরা কিছু চমকপ্রদ উপহার পাবেন।

এর আগে দেশেই মুক্তি পায় হিরো আলমের ‘সাহসী হিরো আলম’, ‘টুকাই’ সিনেমা। মিউজিক ভিডিও দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনায় আসেন হিরো আলম। অংশ নেন দেশের বিভিন্ন নির্বাচনেও। সম্প্রতি নির্বাচনের ব্যস্ততা শেষে আবারও অভিনয়ে ফিরেছেন তিনি।

বর্তমানে নতুন সিনেমা এবং গান প্রকাশ নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন হিরো আলম।

বরিশাল অবজারভার / হৃদয়

বিশ্বজয়ের পথে শাহরুখের পাঠান-জাওয়ান

বিনোদন ডেস্ক :
বছর ঘুরলেও বলিউড বাদশা শাহরুখ খানের দৌরাত্ম কিন্তু চব্বিশেও বহাল তবিয়তে বজায় রয়েছে। ২০২৩ সালে ‘পাঠান’, ‘জাওয়ান’ দিয়ে করেছেন বলিউড জয়। পাশাপাশি দিয়েছেন হলিউড সুপারস্টার টম ক্রুজকে টক্কর। এবার হাজার কোটির ব্যবসা করা ছবি দু’টি দিয়ে বিশ্বজয়ের পথে কিং খান।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভালচার্স ২০২৩ অ্যানুয়াল স্টান্ট অ্যাওয়ার্ড-এর তালিকায় নাম তুলেছে শাহরুখ খানের এই দুই ব্লকবাস্টার সিনেমা। গেল বছরে বক্স অফিসে সবথেকে বেশি ব্যবসা করা সিনেমার খেতাব জিতেছিল ‘জাওয়ান’। রানার্স আপ-এর জায়গাও তারই দখলে। ‘পাঠান’-এর দৌলতে। ভারতে তো বটেই এমনকী বাদশার বিশ্বব্যাপী অনুরাগীরাও ‘জাওয়ান’ দেখে ভূয়সী প্রশংসা করেছিলেন।

এবার বিশ্বের অ্যাকশন প্যাকড সিনেমার শীর্ষ তালিকার দৌড়েও নাম উঠেছে ‘পাঠান’, ‘জাওয়ান’-এর। এই একই তালিকায় টম ক্রুজের ‘মিশন ইমপসিবল-ডেড রেকনিং’ এবং কিয়ানু রিভস-এর ‘জন উইক ৪’ ছবিও রয়েছে।

‘জাওয়ান’-এর তুখড় হাইওয়ে চেসিং সিকোয়েন্সের জন্য সেরা ভেহিকেলার স্টান্ট এবং সেরা অ্যাকশন ছবির বিভাগে মনোনীত হয়েছে। অন্যদিকে, বেস্ট এরিয়াল স্টান্ট বিভাগে রয়েছে পাঠান। এছাড়া সেরা অ্যাকশন ফিল্ম ক্যাটাগরিতেও রয়েছে ‘পাঠান’, ‘জাওয়ান’-এর নাম।

গেল বছরের ২৫ জানুয়ারি মুক্তি পায় ‘পাঠান’। এটি যশরাজ স্পাইভার্সের অংশ। শাহরুখ খান ছাড়াও এই ছবিতে ছিলেন দীপিকা পাড়ুকোন, জন আব্রাহাম, ডিম্পল কাপাডিয়া প্রমুখ। ছবিটির পরিচালনা করেছিলেন সিদ্ধার্থ আনন্দ। এখানে সালমান খানকে দেখা গিয়েছিল টাইগারের ক্যামিও চরিত্রে।

অন্যদিকে, জাওয়ান ছবিটি ৭ সেপ্টেম্বর মুক্তি পায়। অ্যাটলি পরিচালনা করেছিল ছবিটির। এখানে মুখ্য ভূমিকায় শাহরুখ ছাড়াও ছিলেন দক্ষিণি সুপারস্টার নয়নতারা, বিজয় সেতুপতি প্রমুখ। ক্যামিও চরিত্রে দেখা মেলে সঞ্জয় দত্ত এবং দীপিকা পাড়ুকোনের।

 

বরিশাল অবজারভার / হৃদয়

জন্মদিনে সাবার সঙ্গে হৃতিকের অন্তরঙ্গ মুহূর্ত

বিনোদন ডেস্ক :
বলিউডের ‘গ্রিক দেবতা’খ্যাত সুপারস্টার হৃতিক রোশন গতকাল বুধবার তাঁর ৫০তম জন্মদিন উদযাপন করেছেন। আর জন্মদিনে ভক্ত থেকে শুরু করে কাছের মানুষেরা সকলেই তাঁকে শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা জানিয়েছেন। এমনকি তাঁর বান্ধবী এবং গায়ক-অভিনেতা সাবা আজাদ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইন্সটাগ্রামে জন্মদিনের সুন্দর একটি পোস্ট করেছেন।

সাবা হৃতিকের একটি বুমেরাং ভিডিও শেয়ার করে তাঁদের একটি সেলফির পোজও ভাগ করে নিয়েছেন। সেখানে তাঁদের একে অন্যকে চুম্বন করতেও দেখা গিয়েছে। তিনি একইসঙ্গে লিখেছেন, ‘সূর্যের চারপাশে ৫০ বার পাক খাওয়া কত সুন্দর মুহূর্ত। আরও ১০০ বছর এমনটা হোক। শুভ জন্মদিন আমার ভালোবাসা। তুমিই সেরা।’

শুধু বর্তমান প্রেমিকা নয়, হৃতিকের জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রাক্তন স্ত্রী সুজান। হৃতিককে তাঁর জন্মদিনের বার্তায় ‘শ্রেষ্ঠ প্রেম’ বলেও উল্লেখ করেছেন। তিনি জন্মদিনের শুভেচ্ছা যেমন জানিয়েছেন, তেমনই বাবা হৃতিকেরও প্রশংসা করেছেন। শেষে সুজান লেখেন, ‘আশা করব একটা দুর্দান্ত প্রেমজীবন হোক তোমার।’

বিয়ে ভেঙে গেলেও এখনও বন্ধুত্বের সম্পর্ক অটুট হৃতিক-সুজানের। একে অপরের সঙ্গীদের সঙ্গে স্বচ্ছন্দ তাঁরা। হৃতিক যেমন প্রেম খুঁজে পেয়েছেন সাবার মধ্যে, তেমনই সুজান সম্পর্কে রয়েছেন অভিনেতা আলি গোনির সঙ্গে।

বরিশাল অবজারভার / হৃদয়

বাবা দিবসে কাকে ‘খোঁচা’ দিলেন পরীমণি?

বিনোদন ডেস্ক :
আজ ‘বিশ্ব বাবা দিবস’। প্রতিবছর জুন মাসের তৃতীয় রবিবার বিশ্বব্যাপী দিবসটি পালন করা হয়।

এ উপলক্ষে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি পোস্ট দিয়েছেন সময়ের আলোচিত তারকা পরীমণি। রবিবার ভোর ৫টার দিকে ‘খোঁচা’ দিয়ে এই পোস্ট করেন ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় এই নায়িকা।

নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টের ওই পোস্টে পরীমণি লেখেন, “এই যেমন আজ তোমার বাবাকে নিয়ে তুমি সুন্দর কোনো স্মৃতি খুঁজে পাচ্ছ না শেয়ার করার মতন, তেমনি একদিন তোমাকে নিয়েও তোমার ছেলের কোনো মেমোরিজই থাকবে না! অবশ্য তোমার তো তোমার মায়ের সঙ্গেই নেই সেসব। যত আবার ফেরেন্ডিদের (ফ্রেন্ড) সঙ্গে আছে! লুজার। মা-বাবা নেই এই কষ্ট ঢের ভালো এমন থাকার থেকে। যাই ঘুম দেই একটা, ছেলের গলা ধইরা।”

সেই স্ট্যাটাসে কারও নাম উল্লেখ না করলেও নেটিজেনদের ধারণা— এটি পরীমণি তার সন্তানের বাবাকে উদ্দেশ্য করেই লিখেছেন।

সম্প্রতি রাজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে তার সহ-অভিনেত্রীদের ব্যক্তিগত মুহূর্তের ভিডিও ফাঁসের ঘটনায় রাজ-পরীর দাম্পত্য কলহ প্রকাশ্যে আসে। তখনই জানা যায়, আলাদা থাকছেন দু’জনে। মাঝে মাঝে সন্তানকে দেখতে আসেন রাজ।

রাজ চলে গেল রাজের মতো

বিনোদন ডেস্ক :
জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা পরী মণি ও চিত্রনায়ক শরিফুল রাজ দম্পত্তিকে নিয়ে সামাজিক পাতায় চর্চা এখনও চলমান । কারণ এর আগে স্বামী শরিফুল রাজের কাছে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বিবাহবিচ্ছেদের দাবি জানিয়েছিলেন এই নায়িকা। তবে গেল ১০ জুন ছেলে রাজ্যের ১০ মাসের জন্মদিনে ফের একফ্রেমে দেখা গেল রাজ-পরী মণিকে। আর তাতেই অনুরাগী থেকে ইন্ডাস্ট্রির অনেকের জল্পনাও শুরু হলো, তা হলে কি এক হলেন এই তারকা দম্পতি! অবশেষে এমন সম্ভবনার কথা উড়িয়ে দিলেন পরী মণি।

আজ সোমবার (১২ জুন) ভোরে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে পরীমণি লিখেছেন, ‘আপনাদের মধ্যে অনেকের মতো আমিও খুশি হয়ে যাই খবরের এ সব শিরোনাম দেখে! সব ভুলে আবার এক হলেন…… কিন্তু সব কি আর সব সময় এক হয়? আমরা ১০ তারিখটা (যেটি আমাদের জীবনের অন্যতম বিশেষ দিন, আমাদের বাচ্চার পৃথিবীতে আসার দিন এটি) উদ্‌যাপন করেছি মাত্র। আগামী দিনেও করব। যেখানে আমরা জীবনের অন্য কোনো ইস্যু টানব না। ৯ তারিখ রাতে নানাভাই (পরীমণির দাদু) ঢাকায় আসেন। তারপর এই আয়োজন। শুধু নানাভাই রয়ে গেলেন আমার কাছে। আর, রাজ চলে গেল রাজের মতো……… আশা করি এটা এখানেই শেষ হবে।’

২৯ মে চিত্রনায়ক শরিফুল রাজের ফেসবুক আইডি থেকে অভিনেত্রী সুনেরাহ বিনতে কামাল, তানজিন তিশা ও নাজিফা তুষির সঙ্গে ব্যক্তিগত মুহূর্তের ছবি ও ভিডিও ক্লিপ ফাঁস হয়। যদিও কিছুক্ষণ পরই সেগুলো মুছে দেওয়া হয়। ভিডিও ক্লিপ ও ছবি কে পোস্ট করেছেন, তা নিয়ে এখনও ধোঁয়াসা রয়েছে। কিন্তু তারপর থেকেই পরী-রাজের সম্পর্কের অবনতি যে, স্ত্রী-পুত্রকে ছেড়ে আলাদা থাকা শুরু করেন রাজ।

কীভাবে বিপুল সম্পত্তির মালিক হলেন বলিউড বাদশাহ ?

বিনোদন ডেস্ক :

শাহরুখ খান, যিনি বলিউড বাদশাহ নামে পরিচিত। বর্তমানে তার সম্পত্তির পরিমাণ ছয় হাজার কোটি রুপি বলে একটি সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে। কীভাবে সাম্রাজ্যের মালিক হলেন শাহরুখ?

সাফল্য-ব্যর্থতার মিশেলেই এগিয়ে চলে জীবন। তারকাদের জীবনকেও সেই দৃষ্টভঙ্গি থেকে দেখা হয়। চলতি বছরে শাহরুখ খানের জীবনেও এসেছে সাফল্য, রয়েছে ব্যর্থতাও। একদিকে তার অভিনীত ‘পাঠান’ বক্স অফিসে ব্লকবাস্টার হয়েছে। আগামী সেপ্টেম্বরে মুক্তি পাবে ‘জাওয়ান’। আবার তার দল কলকাতা নাইট রাইডার্সের আইপিএল জয় অধরা রয়ে গেছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও শাহরুখের উপার্জনের রেখচিত্র কিন্তু ঊর্ধ্বগামী। একটি সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে, বলিউড বাদশা ৬ হাজার কোটি রুপির অধিকারী। কীভাবে এই বিপুল পরিমাণ সম্পত্তি তৈরি করলেন শাহরুখ?

প্রসঙ্গ সিনেমা
ইন্ডাস্ট্রিতে তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে রয়েছেন শাহরুখ। শুরু থেকে তার অভিনীত কয়েকটি ছবির দিকে তাকালে বোঝা যাবে, কীভাবে সময়ের সঙ্গে শাহরুখের পারিশ্রমিক বেড়েছে। ১৯৯২ সালে মুক্তি পায় অভিনেতার প্রথম ছবি ‘দিওয়ানা’। ওই একই বছরে মুক্তি পেয়েছিল ‘রাজু বান গায়া জেন্টেলম্যান’। এই ছবির জন্য বাদশার পারিশ্রমিক জানলে অনেকেই বিস্মিত হতে পারেন। ‘রাজু…’র জন্য শাহরুখ পেয়েছিলেন ২৫ হাজার রুপি। এরপর শাহরুখের সব থেকে বড় ব্লকবাস্টার ছিল ‘দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে’। জানা গেছে, এই ছবিতে শাহরুখের পারিশ্রমিক ছিল ৩০ লাখ রুপি। শাহরুখের সাম্প্রতিক ছবি ‘পাঠান’-এ পারিশ্রমিক এবং ছবি থেকে প্রাপ্ত লভ্যাংশের নিরিখে প্রযোজক যশরাজ ফিল্মসের সঙ্গে চুক্তি হয়েছিল। এই ছবির জন্য বাদশার পারিশ্রমিক ধার্য হয়েছে ২০০ কোটি রুপি!

সফল ‘ব্যবসায়ী’
সফল অভিনেতা হওয়ার পাশাপাশি শাহরুখ একজন দক্ষ ব্যবসায়ী। অভিনেতার নিজস্ব প্রযোজনা সংস্থা এবং ভিএফএক্স কোম্পানি রয়েছে, যার নাম রেড চিলিজ এন্টারটেইনমেন্ট। ২০২২ সালের একটি সমীক্ষা বলছে, এই সংস্থার বর্তমান বাজার মূল্য ১০০ থেকে ৫০০ কোটি রুপির মধ্যে। এছাড়াও একটি জনপ্রিয় ছাত্র প্রশিক্ষণ অ্যাপেও বিনিয়োগ করেছেন শাহরুখ। একটি অ্যামিউজমেন্ট পার্কেরও তিনি অংশীদার।

এবার আসা যাক তার সব থেকে উল্লেখযোগ্য বিনিয়োগ প্রসঙ্গে। আইপিএল-এ কলকাতা নাইট রাইডার্সের মালিক শাহরুখ। এছাড়াও অভিনেতা দক্ষিণ আফ্রিকার টি টোয়েন্টি লিগের অন্তর্গত ‘কেট টাউন নাইট রাইডার্স’-এর মালিক। প্রত্যেক বছর, টি টোয়েন্টি লিগ থেকে এক বড় অংশের মুনাফা অর্জন করেন শাহরুখ। এখানেই শেষ নয়। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে বিশেষ করে বিয়ের অনুষ্ঠানেও পারফর্ম করেন শাহরুখ।

গণমাধ্যমের খবর থেকে জানা গেছে, কোনও অনুষ্ঠানের অংশ হতে বা সেখানে পারফর্ম করার জন্য শাহরুখ ৩ কোটি রুপি পারিশ্রমিক নেন।

বিজ্ঞাপনের মুখ
ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই বিজ্ঞাপনের অন্যতম পছন্দের মুখ শাহরুখ খান। বছরে প্রায় ১০ থেকে ১২টি দেশের প্রথম সারির পণ্য এবং পরিষেবার হয়ে প্রচার করেন শাহরুখ। প্রতি বিজ্ঞাপনে বাদশার পারিশ্রমিক ৫ থেকে ১০ কোটি রুপির মধ্যে।

সঞ্চালকের আসনে
শাহরুখের রসবোধ নিয়ে নতুন করে কিছু বলার নেই। আর অভিনেতার এই বিশেষ গুণই বিভিন্ন সময়ে তাকে ছোট পর্দায় বিভিন্ন শোয়ের সঞ্চালকের আসনে বসিয়েছে। জনপ্রিয় গেম শো ‘কোওন বানেগা ক্রোড়পতি’র তৃতীয় সিজনের সঞ্চালক ছিলেন শাহরুখ। এছাড়াও তার ঝুলিতে ছিল ‘কেয়া আপ পাঁচয়ি পাস সে তেজ হ্যায়’ এবং ‘জোর কা ঝাটকা’ রিয়্যালিটি শো। বিভিন্ন সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে, এই মুহূর্তে কোনও শোয়ের অংশ হতে প্রতি এপিসোডে বাদশা আড়াই কোটি রুপি নিয়ে থাকেন।

মাধ্যম যখন সামাজিক
সময়ের সঙ্গে বিজ্ঞাপনের ক্ষেত্রে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টিভির সঙ্গেই প্রথম সারিতে জায়গা করে নিয়েছে। শাহরুখও সেখানে পিছিয়ে নেই। বিভিন্ন ব্র্যান্ডের জন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তিনি প্রচার করে থাকেন। ইনস্টাগ্রাম এবং টুইটারে শাহরুখের ঈর্ষণীয় অনুসরণকারী যেকোনও বড় ব্র্যান্ডের কাছে পাখির চোখ। জানা গেছে, কোনও ব্র্যান্ডের হয়ে শাহরুখ তার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের পাতায় একটি পোস্ট করা জন্য ৮০ লাখ থেকে ১ কোটি রুপি পর্যন্ত পারিশ্রমিক নিয়ে থাকেন।

‘মান্নাত’ ছাড়াও…
যেকোনও পর্যটকের কাছে প্রথম মুম্বাই ভ্রমণ মানেই অন্যতম আকর্ষণ শাহরুখের বাড়ি ‘মান্নাত’। ২০২৩ সালের একটি সমীক্ষা অনুযায়ী, বান্দ্রার এই প্রাসাদোপম বাড়িটির বাজারদর ২০০ কোটি রুপি। মহারাষ্ট্রের আলিবাগে শাহরুখের নিজস্ব বাগানবাড়ি রয়েছে। এই বাড়িটির দাম প্রায় ১৫ থেকে ২০ কোটি রুপির মধ্যে। দেশের বাইরেও অভিনেতার একাধিক বাড়ি রয়েছে। যেমন দুবাইয়ের পাম জুমেইরাতে শাহরুখের একটি নিজস্ব বাড়ি রয়েছে, ভারতীয় মুদ্রায় যার দাম ১০০ কোটি রুপি। এছাড়াও লন্ডনে শাহরুখের একটি বাড়ি রয়েছে। ভারতীয় মুদ্রায় এই বাড়িটির বর্তমান বাজারদর ১৮৫ কোটি রুপি!

এবং বাহন
বলিউডের বাদশাহ মানে তার বাহনেও থাকবে রাজকীয় ছন্দ। জানা গেছে, শাহরুখের গাড়িগুলোর মোট দাম প্রায় ৩১ কোটি রুপি। কী নেই তার কাছে। শাহরুখের মালিকানায় একটি করে বিএমডব্লিউ, অডি, মার্সেডিজ, ল্যান্ড ক্রুজার, বেন্টলি, রেঞ্জরোভার। এরই সঙ্গে ‘পাঠান’-এর সাফল্যের পর অভিনেতা নিজের জন্য একটি রোলস্ রয়েজ় কালিনান ব্ল্যাক ব্যাজ কিনেছেন। আর এই গাড়িটির দাম অন্তত ১০ কোটি রুপি!

৩ বন্ধু ও ভক্তদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করলেন রাজ

বিনোদন ডেস্ক :
অভিনেত্রী সুনেরাহ বিনতে কামাল, তানজিন তিশা ও নাজিফা তুষির সঙ্গে ব্যক্তিগত মুহূর্তের ছবি ও ভিডিও ক্লিপ মঙ্গলবার মধ্যরাতে আপলোড করা হয় চিত্রনায়ক শরিফুল রাজের ফেসবুক আইডি থেকে। যদিও কিছুক্ষণ পরই সেগুলো  মুছে দেওয়া হয়।

এই ঘটনায় আজ ৩১ মে দীর্ঘ এক বিবৃতিতে নিজের অবস্থান প্রকাশ করেছেন চিত্রনায়ক শরিফুল রাজ।

শরিফুল রাজের বক্তব্য

মানুষ প্রতি মুহূর্তে একটু একটু করে পরিণত হয়। জন্মের পর নিজের পায়ে চলতে শিখতেও কয়েক বছর লেগে যায়। আর ঠিকঠাক কথা বলা শিখতে লেগে যায় আরও কিছু বছর। কিন্তু এই বলা আর চলার যাত্রা কখনও শেষ হয়না। তবে এই যাত্রায় আমরা কিছু মানুষের সাথে পরিচিত হই, যাদের সাথে সুখ, দুঃখ, কাজের আলাপ কিংবা কাজহীন দিনের আলাপ, সুস্থতা এবং পাগলামী সবকিছুই ভাগ করে নেয়া যায়। যাদের সাথে চলার বা কথা বলার বিশেষ কোনো শর্ত থাকে না। শর্ত থাকে কেবল একটাই- সেটার নাম বন্ধুত্ব।

নিশ্চয়ই আপনাদের প্রত্যেকেরই এমন অনেক বন্ধু রয়েছে- যাদের সাথে আপনারা আভিধানিক শব্দে কথা বলেন না, একসাথে পথ চলার সময় ভবিষ্যৎ ভাবনা নিয়ে পথ চলেন না। যাদের সাথে অনেক বেফাঁস কথা বলেন, কারণ বন্ধুত্ব তো এমনই। লিঙ্গ, বর্ণ, বয়সসহ সকল সীমারেখার উপরে মানুষের বন্ধুত্ব।

কিন্তু সমস্যা হয়, যখন কেউ অসৎ উদ্দেশ্যে বন্ধুত্বের মতো সম্পর্কের মাঝখানে লৈঙ্গিক পরিচয়ের সীমারেখা টেনে, ব্যাপারটাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে চায়। যখন কেউ বন্ধুদের মধ্যকার দ্বিধাহীন আড্ডার আলাপ টক অব দ্যা টাউনে পরিণত করে। আমিও তেমনই এক সমস্যায় পড়েছি।

আমি গত কয়েকদিন যাবৎ সিনেমার ডাবিং নিয়ে ব্যস্ত, আমার সিনেমার কিছু গল্পের স্ক্রিপ্ট রিডিং করার কথা, এইগুলা নিয়েই আমি ঠিকমতো সময় দিতে পারছিনা। যখনই সময় পাচ্ছি গল্পের ভিতরে ঢুকে যাচ্ছি, তারমধ্য হঠাৎ করে কে বা কারা এসব করে আমাকে হেনস্তার শিকার করছে যা ভাবতেই আমি হতবাক হয়ে গেলাম। আমাকে নিয়ে শেষ যতদিন থেকে নানাবিধ সত্য মিথ্যার মিশ্রণে ঘটনার চাউর করছে আমি তার শুরু থেকেই নীরব ছিলাম। কিন্তু নীরবতা মানেই দূর্বলতা না।

আমার ফেসবুক প্রোফাইলের পাসওয়ার্ড/অ্যাকসেস এমন কারো কাছে আছে অথবা হ্যাক করে কেউ আমার দীর্ঘকালের বন্ধু ও সহকর্মীদের সঙ্গের নিতান্ত বন্ধুত্বের আড্ডার ঘটনা লিক করে দেয়। যে বা যারা এই কাজ করেছে, তাঁদের উদ্দেশ্য ছিল আমাদের হেনস্তা করা। হয়তো তারা সফলও হয়েছে।

আমি আমার তিন বন্ধু ও সহকর্মীর কাছে শর্তহীন দুঃখ প্রকাশ করছি; যারা আমার খুব ভাল বন্ধু দীর্ঘদিনের। সেই বন্ধুত্বের কোন লিঙ্গ নেই। আমার কারণে তাঁদের হেনস্তার শিকার হতে হলো বলে। আমার সকল শুভাকাঙ্ক্ষী, সমর্থক ও সমালোচকদের কাছেও আমি দুঃখ প্রকাশ করছি- বন্ধুদের আড্ডার ঘটনা নোংরা উদ্দ্যেশে স্প্রেড করে মিসলিড করা হয়েছে বলে।

বহুবার হোঁচট খেয়েই তো হাঁটতে শিখেছি! আবারও হোঁচট খেলাম। আপনাদের দোয়া ও ভালোবাসা সাথে থাকলে নিশ্চয় আরো পরিণত হবো, শিখবো অতীতের ভুল থেকে।

আমাকে আপনাদের দোয়া ও ভালোবাসায় রাখবেন। কারণ আপনাদের সমর্থন ছাড়া একজন শরিফুল রাজ কিছুই নয়।
জগতের সকল প্রাণী সুখী হোক। সবাইকে ভালোবাসা ও শুভকামনা।

চলচ্চিত্রে দুই যুগ পূর্ণ হল ঢাকাই ছবির শীর্ষ নায়ক শাকিব খানের

বিনোদন ডেস্ক :
চলচ্চিত্রে দুই যুগ পূর্ণ হলো ঢাকাই ছবির শীর্ষ নায়ক শাকিব খানের। ১৯৯৯-এর ‘অনন্ত ভালোবাসা’ থেকে শুরু হয়ে ২০২৩-এ ‘লিডার আমিই বাংলাদেশ’। আজ ক্যারিয়ারের ২৪ বছর পূর্ণ করলেন তিনি।

চলচ্চিত্রের দুই যুগ পার করা এই নায়ক পার করছেন দারুণ সময়। যে সময়ের জন্য একদিন তিনি স্বপ্ন দেখতেন, যে স্বপ্ন তাকে ঘুমুতে দিত না। নারায়ণগঞ্জ থেকে এফডিসি, এফডিসি থেকে কাকরাইল, পরিচালকদের দুয়ারে দুয়ারে হানা- সবই করেছেন। নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে আজ তিনি রাজ করছেন এ অঙ্গনে।

১৯৯৯ সালের ২৮ মে মুক্তি পায় সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‘অনন্ত ভালোবাসা’। সেই ছবিতে নায়ক হিসেবে অভিষেক হওয়া হ্যাংলা-পাতলা ছেলেটাই একদিন চলচ্চিত্রে রাজ করবেন- এমনটা কেউ ভাবেননি। সাফল্য ও দর্শকপ্রিয়তার বিচারে শাকিব খানের ধারে-কাছেও কোনো নায়ককে পাওয়া যাবে না।

অপ্রতিরোধ্যতার অগ্রযাত্রায় অপ্রতিদ্বন্দ্বী পথচলা অভিযাত্রী শাকিব খান। তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিজয়ী নায়কও বটে। নিজেকে বাংলাদেশের সিনেমার আচ্ছাদন মনে করেন কি-না প্রশ্নে শাকিব কৌশলী কিন্তু আত্মবিশ্বাসী। তিনি বলেন, আমি যখন যে কাজটি করি, তা শতভাগ মনোযোগ দিয়েই করি। সেই কাজের সঙ্গে আমার প্রেম থাকে। এখন দর্শক আমাকে বাংলাদেশের সিনেমার শামিয়ানা মনে করলে তাদের রায় মাথা পেতে নেব।

অন্য আট-দশ জনের মতো শাকিবের ইচ্ছে ছিল ডাক্তার বা ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার। তিনি বলেন, সায়েন্সের ছাত্র ছিলাম। সবসময় ভাবতাম ডাক্তার হয়ে দেশের মানুষের সেবা করব। কিন্তু এইচএসসির পর হঠাৎ করেই সব স্বপ্ন হারিয়ে যেতে থাকল। ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ার না হয়ে হলাম অভিনেতা।

আপনার কাছে সাফল্যের মূলমন্ত্র কী? শাকিবের উত্তর, কোনো মূলমন্ত্র নেই। তবে একজন হিরোর সাফল্যের মূলমন্ত্র কিন্তু দর্শকদের ভালোবাসা। নায়ক যদি দর্শকদের চাওয়া-পাওয়ার মূল্য দেয়, তাহলে দর্শকদের কাছে সে গ্রহণযোগ্যতা পায়। সাফল্যও আসে।

বর্তমানে একমাত্র শাকিব খানের ছবি নিশ্চয়তা দিতে পারছে প্রয়োজকদের। তাদের টাকা ফেরতের বিষয়টি নিশ্চিত করতে পারছেন তিনি। এর ফাঁকে মাঝে মধ্যে ২-১টি সিনেমা দর্শকদের ভালোবাসায় সিক্ত হচ্ছে। তবে, এই সংখ্যা হাতেগোনা। দিন শেষে শাকিবেই ভরসা রাখছেন সব প্রযোজক। শাকিব খান অভিনীত ছবি মানেই প্রযোজকদের নিশ্চয়তা। শাকিব খান এখন আগাগোড়াই প্রফেশনাল নায়ক। অভিনয় জীবনে তার যা কিছু অর্জন সবকিছুই তিনি কখনও দর্শকের জন্য উৎসর্গ করেছেন, কখনও ছেলে আব্রাম খান জয়কে ও শেহজাদ খান বীর, কখনও বা উৎসর্গ করেছেন মা-বাবাকে। এত এত যার সাফল্য, এত এত যার ভাঁড় তার একটু ভুল হবে না, তা কিন্তু নয়।

বিগত ১০ বছরে বেশ সমালোচিতও হয়েছেন শাকিব। অপু বিশ্বাস ও শবনম বুবলীর সঙ্গে প্রেম, বিয়ে ও ডিভোর্স, শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সমর্থিত প্যানেলের পরাজয়, বারবার বয়কটের শিকার, মানহানি মামলা, সন্তান নিয়ে থানা-পুলিশ ইত্যাদি নিয়ে বেশ সমালোচিতও এ নায়ক।

শাকিব জানান, চলচ্চিত্রই তার ধ্যান জ্ঞান। অথচ এখন শাকিব অভিনীত চলচ্চিত্রও খুব কম মুক্তি পাচ্ছে। অথচ গত এক দশক শাকিব বিরতিহীনভাবে কাজ করেছেন। বছরের ৩৬৫ দিনই তাকে শুটিং নিয়ে ব্যস্ত থাকতে দেখা গেছে। এখন সে ব্যস্ততা কমিয়েছেন। গত কয়েক বছর ধরে তো কেবল উৎসবেই মুক্তি পাচ্ছে তার ছবি। ছবির সংখ্যা কমানোর কথা জানতে চাইলে উত্তরে শাকিব বলেন, কয়েক বছর আগেও তো বছরে ১০টি ছবি মুক্তি পেত আমার। এখন ছবির সংখ্যা অনেক কমিয়ে দিয়েছি। সেটা নানা কারণেই। তবে যে ছবিগুলো করব সেগুলো কোয়ালিটি সম্পন্ন ছবিই হবে।

ইতিমধ্যে ঈদুল আজহার জন্য  ‘প্রিয়তমা’ নামে একটি ছবির শুটিং করছেন শাকিব। নায়কের ভাষ্য, অসাধারণ গল্পের ছবি এটি। প্রযোজক আরশাদ আদনানের প্রযোজনায় হিমেল আশরাফ বানাচ্ছেন ছবিটি। ছবিটিতে দারুণ কিছু লুকে পাওয়া যাবে শাকিবকে। যা দর্শকদের খুবই পছন্দের হবে।