বুধবার, ১৯ মে ২০২১, ০৭:০১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসার পর দেশের মানুষ আজ শান্তিতে বসবাস করছে-এমপি শাওন ঢাকায় নারী সাংবাদিক লাঞ্চিত,বরিশাল সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির নিন্দা ও প্রতিবাদ সাংবাদিক রোজিনার মুক্তির দাবিতে বরিশাল অনলাইন সাংবাদিক ইউনিয়নের বিবৃতি প্রচন্ড তাপদাহে আমতলীতে বেড়েছে তালের শাঁসের কদর সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তকারীদের বিচার চাই-নারী মুক্তি সংসদ প্রচন্ড তাপদাহে একটু স্বস্তি পেতে আগৈলঝাড়ায় বিক্রি বেড়েছে তাল শাঁস ৮৭তম মৃত্যুবার্ষিকীতে মুকুন্দ দাসের স্মরণে চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের স্মরণানুষ্ঠান আয়োজিত  রোজিনা ইসলামকে হেনস্থায় জড়িতদের শাস্তি চাই-ওয়ার্কার্স পার্টি ২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় হবে ১২৫০০ ডলার: পরিকল্পনামন্ত্রী শেবাচিমের সিসিইউ বিভাগে চরম দুরাবস্থা
২২ এপ্রিল থেকে শপিংমল খুলে দেওয়ার দাবি

২২ এপ্রিল থেকে শপিংমল খুলে দেওয়ার দাবি

আগামী বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) থেকে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে শপিংমল, মার্কেট, দোকান ও ক্ষুদ্র ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়াসহ তিন দফা দাবি জানিয়েছে দোকান মালিক সমিতি। রোববার (১৮ এপ্রিল) রাজধানীর নিউমার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির অফিস কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়।

আগামী ২২ এপ্রিলের মধ্যে মার্কেট ও দোকানপাট খুলে দেওয়ার দাবিতে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি ও ঢাকা মহানগর (উত্তর ও দক্ষিণ) দোকান মালিক সমিতির উদ্যোগে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য হেলালউদ্দিন বলেন, গত এক বছর প্রাণঘাতী মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে ব্যবসায়ীরা অর্থনৈতিকভাবে চরম ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। ২০২০ সালের ১৮ মার্চ যখন বাংলাদেশে প্রথম করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে তখন আমরা দোকান মালিকরা স্বেচ্ছায় ২৫ মার্চ থেকে সবকিছু বন্ধ করে দেই। সরকার পরদিন ২৬ মার্চ থেকে সবকিছু বন্ধ ঘোষণা করে। তখন থেকে এদেশের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জীবনে ব্যবসায়িক মন্দা ও আর্থিক অনিশ্চয়তা নেমে আসে। গত বছরের ৫ মে’র পর আমাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সীমিত পরিসরে দোকানপাট ও মার্কেট খুলে দেওয়ার পর ব্যবসা-বাণিজ্যে কিছুটা গতি আসে। এরপর আবার সংক্রমণ বাড়তে থাকায় গত ৭ থেকে ১৩ এপ্রিল বিধিনিষেধ এবং ১৪ থেকে ২১ এপ্রিল কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে সরকার। এ অবস্থায় ব্যবসায়ীদের পরিস্থিতি বিবেচনা করে মার্কেট খুলে দেওয়ার দাবি জানান তারা।

বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির দাবিগুলো হলো:
আগামী ২২ এপ্রিল থেকে প্রয়োজনীয় সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে শপিংমল, মার্কেট, দোকান ও ক্ষুদ্র ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে দিতে নির্দেশনা দেওয়া, শ্রমিক-কর্মচারীদের দুই মাসের বেতন ও বোনাসের ৯৬ হাজার ৭০৮ কোটি টাকার অর্ধেক ৪৮ হাজার ৩৫৪ কোটি টাকা ঈদের আগে ঋণ প্রণোদনা হিসেবে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের দেওয়া এবং দেশের সার্বিক অর্থনৈতিক অচলাবস্থা দূর করার লক্ষ্যে আগামী তিন মাসের মধ্যে দেশকে ভ্যাকসিনেশনের আওতায় আনাতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির মহাসচিব মো. জহিরুল হক ভূঁইয়াসহ ঢাকা মহানগর (উত্তর ও দক্ষিণ) দোকান মালিক সমিতির ব্যবসায়িক নেতারা উপস্থিত ছিলেন।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved by barishalobserver.Com
Design & Developed BY Next Tech