মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:০৩ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বরিশালে মাদক মামলায় ১ ব্যক্তির ১০ বছরের কারাদণ্ড উজিরপুরে এমপি রুবিনা আক্তার মীরার পক্ষ থেকে কেক কেটে প্রধানমন্ত্রীর জন্মাদিন পালন তথ্য অধিকার আইন বাস্তবায়নে তিন ক্যাটাগরিতে বিশেষ অবদান রাখায় প্রথম স্থানে বরিশাল শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন বরিশালের উপ-ভূমি সংস্কার কমিশনার বরিশালে আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস পালিত ছয় মাস পর খুলে দেওয়া হল রমনা পার্ক শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে কাউখালীতে ছাত্রলীগের বৃক্ষ রোপন কর্মসূচী পালন প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে পটুয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদকের দোয়া ও মিলাদ বাকেরগঞ্জে বিভিন্ন আয়োজের মধ্য দিয়ে পালিত হলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪ তম জন্মদিন সর্ববৃহৎ বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ম্যুরাল উদ্বোধন করলেন বিসিসি মেয়র সাদিক

banner728x90

banner728x90

তালতলীতে সরকারী খাল দখল করে স্থাপনা নির্মান

তালতলীতে সরকারী খাল দখল করে স্থাপনা নির্মান

আবু হানিফ নয়ন:
সারা দেশে যখন খাল নদী দখলের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে এমন সময় চলছে বরগুনার তালতলী উপজেলার কচুপাত্রা বাজারের খাল দখল করা হচ্ছে। শারিকখালী ইউনিয়নের কচুপাত্রা বাজারে প্রতি রোববার হাট বসে এবং প্রধানমন্ত্রীর নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বে ও থেমে নেই খাল ও জলাশয় দখল।

কোথাও প্রভাবশালীরা, আবার কোথাও রাজনৈতিক নেতাদের ছত্রচ্ছায়ায় সাধারণ মানুষ মুদি দোকানের মালিকরা, বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করে স্থানীয়রা বসবাস করছে। খালের দু’পাড়ে দোকান ইমারত নির্মাণ করার ফলে একদিকে যেমন খাল সংকুচিত হয়ে অন্যদিকে খালের নব্যতা কমে ভরাট হয়ে যাচ্ছে।

এক সময় খাল দিয়ে নৌকা চলত মানুষ মালপত্র নিয়ে যাতায়াত করতো তা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, মোটা অংকের টাকার বিনিময় প্রশাসন খালটিকে গিলে খাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছে। বৃষ্টির দিন এলে চরম দুর্ভোগে বসবাস করে সাধারণ মানুষ।

এ বিষয় বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের সংগঠক হাসান ঝন্টু বলেন, সরকারি খাল বা নদীর পাশে কোনো অবৈধ স্থাপনা করার সুযোগ নেই। অবৈধ স্থাপনা যদি কেউ দখল করার চেষ্টা করে তাহলে তার বিরুদ্ধে প্রশাসনের উচিৎ উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে দখল মুক্ত করা। উপজেলা ভূমি অফিসে অবৈধ স্থাপনার বিষয় এই প্রতিবেদক জানতে গেলে সঠিক কোনো তথ্য পাওয়া যায় নি। নাম প্রকাশে অনিশ্চুপ কয়েক কৃষকরা বলেন, কচুপাত্রা-দোন খালের পাড়ে যে হাড়ে অবৈধ স্থাপনা গড়ে উঠতেছে এক সময় রাস্তার দুই পাশের খাল দুটি ভরাট হয়ে যেতে পারে।

আমরা কৃষকরা মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্থ হবো। বন্ধ হয়ে যাবে আমাদের ফসল উৎপাদন। আমরা ফসল উৎপাদন করে জীবিকা নির্বাহ করি যার কারণে এক সময় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে যাবে গোটা এলাকা। বিষয়টি সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টিতে আনা হলেও এখনও কোন কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের বরগুনা জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুশফিক আরিফ বলেন, অবৈধ স্থাপনা ব্যক্তিগত ভাবে কেউ দখলে নিতে পারবে না। খাল কিংবা জলাশয়ের জমি কেউ দখল করে তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসন ব্যবস্থা নিবে। অবৈধ জমি দখলের কারণে এক সময় পরিবেশ বিপর্যয়ের আশঙ্কা রয়েছে।

বরগুনা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো.কাওসার হোসেন মুঠোফোনে জানান, অবৈধ স্থাপনার লিস্ট তৈরি করে ডিসি অফিসে জানানো হয়েছে এবং ডিসি অফিস থেকে পর্যায়ক্রমে ব্যবস্থা নিবে।




banner728x90

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

banner728x90




© All rights reserved by barishalobserver.Com
Design & Developed BY AMS IT BD